Halima Khatun Girls School
Heads Up! Welcome to Barisal Zilla School
Tuesday, November 13, 2018
SSC Results - 2018. For details Click on the Notice Board. <>

বিদ্যালয় পরিচিতি

বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ স্কুলগুলোর মধ্যে বরিশাল জিলা স্কুল অন্যতম। মূলত ঐতিহ্যবাহী বরিশাল জিলা স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা মি. এন. ডব্লিউ গ্যারেট। 1829 খ্রিস্টাব্দের 23 ডিসেম্বর তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মাত্র আটজন ছাত্র নিয়ে বরিশাল ইংরেজি স্কুল শুরু হয়। এই স্কুলের প্রথম প্রধান শিক্ষক মি. জন স্মিথ এবং প্রথম বাঙালি প্রধান শিক্ষক বাবু তনুরাম লাহিড়ী। 1853 হতে 1891 খ্রিস্টাব্দে বেসরকারি ঘোষণা করা হলেও 1906 খ্রিস্টাব্দে আবার সরকারিকরণ করা হয়। তৎকালীন স্কুল কার্যক্রম পরিচালিত হত মি. লুকাসের জমির মধ্যে প্রোটেস্টান্ট গির্জার পশ্চিমের ভবনে। তদানীন্তন বাংলার গভর্নর স্কুল পরিদর্শনকালে স্কুলটিকে অস্বাস্থ্যকর মন্তব্য করলে মি. বার্টনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বর্তমান স্কুল ভবনটি প্রতিষ্ঠিত হয়।
বরিশাল জিলা স্কুলের স্বনামধন্য ছাত্রদের মধ্যে অন্যতম হলেন শের-ই-বাংলা এ.কে. ফজলুল হক।আরও রয়েছেন শরৎচন্দ্র গুহ, ক্ষেত্রমোহন ঘোষ, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি আবদুর রহমান বিশ্বাস, যোগেশ চন্দ্র গুহ প্রমুখ। বরিশাল জিলা স্কুলের প্রথম মুসলমান শিক্ষক ছিলেন খান সাহেব মৌলভি সিরাজ উদ্দিন আহমদ। 1991 সালে স্কুলে প্রভাতি ও দিবা শাখার সূচনা করা হয়। বর্তমানে স্কুলের ছাত্রসংখ্যা প্রায় আড়াই হাজার এবং শিক্ষক রয়েছেন 54 জন। ছাত্রজীবনকে শুধুমাত্র শ্রেণীকক্ষে সীমাবদ্ধ না রেখে তার সুকুমার মানসিক ও শারীরিক বিকাশের জন্য সংস্কৃতি চর্চা, বিচিত্রানুষ্ঠান, খেলাধুলার আয়োজন নিয়মিতভাবে হয়ে থাকে। বিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারে রয়েছে প্রাচীন তত্ত্ব ও তথ্য সমৃদ্ধ ধর্মীয় ও আধুনিক পুস্তকাবলী। বিদ্যালয় ছুটির পর ছাত্ররা নিয়মিত পাঠাভ্যাস করে থাকে। এছাড়া বিদ্যালয়ে গড়ে উঠেছে কাবস্কাউট, বি.এন.সি.সি, রেড ক্রিসেন্ট প্রভৃতি ছাত্র সংগঠন। আনন্দের বিষয় এই যে, বরিশাল জিলা স্কুলের বি.এন.সি.সি ও রেড ক্রিসেন্ট দল আর্তমানবতার সেবায় সহমর্মিতার হাত বাড়িয়ে দেয় মানব কল্যাণে এবং স্কাউট দল সারা বাংলার স্কুলসমূহের মধ্যে অগ্রগামী। জাতীয় ও আন্তঃবিভাগীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আমাদের খেলোয়াড়বৃন্দ বিশেষ সাফল্যের সাথে অংশগ্রহণ করে আসছে। এছাড়া বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায়ও আমাদের ছাত্ররা অনেক সুনাম কুড়িয়ে স্কুলের ঐতিহ্য সমুন্নত রেখেছে। জাতীয় শিশু-কিশোর প্রতিযোগিতা, টেলিভিশন বিতর্ক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমেলা সবক্ষেত্রেই রয়েছে দৃপ্ত পদচারণা। বরিশাল জিলা স্কুলের ছাত্রদের তৃপ্ত পদচারণা অব্যাহত থাকুক। এটাই আমাদের প্রত্যাশা।